১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং | ২রা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ফটোসাংবাদিককে মারধর, রাকিব-হাসিবের বিরুদ্ধে মামলা

পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে সাংবাদিককে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় অভিযুক্ত দুই চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে। আজ (৭ সেপ্টেম্বর) সোমবার বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট কাউনিয়া থানার ওসিকে এজাহার হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেছেন।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, কাউনিয়া থানার সিকদার পাড়া উত্তর আমানত গঞ্জের মৃত আলী আকবরের পুত্র হাসিবুল ইসলাম এবং কোতয়ালী থানার পশুরিকাঠি গ্রামের রফিকুল ইসলাম খন্দকারের পুত্র খন্দকার রাকিবুল হাসান রাকিব একজোট হয়ে দীর্ঘদিন ধরেই সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও চাঁদাবাজী করে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় কিছুদিন পূর্বে কাউনিয়ার বাসিন্দা তানিয়া বেগম নামের একজনের কাছে পঞ্চাশ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করেন। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানান বিসিসির ৫ নং ওয়ার্ড ২ নং গুচ্ছগ্রাম পলাশপুরের বাসিন্দা সোহরাফ হোসেনের পুত্র ফটো সাংবাদিক আল আমিন সাগর।

তাতে ক্ষিপ্ত হন হাসিবুল ইসলাম ও খন্দকার রাকিবুল হাসান রাকিব। ক্ষুব্ধ হয়ে তানিয়ার পাশাপাশি ফটো সাংবাদিক আল আমিন সাগরের কাছেও চাঁদা দাবী করেন। সাগর চাঁদা দিতে অস্বীকার করে আসায় কয়েকদিন ধরেই হাসিব, রাকিব ও সাগরের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।

বিগত ১ সেপ্টেম্বর রাতে সংবাদ সংগ্রহের কাজে স্ব-রোড সোনালী আইসক্রিমের মোড় এলাকায় পৌঁছলে সংঘবদ্ধ রাকিব-হাসিবসহ ৬/৭ জনের একটি দল সাগরকে আটকে পূর্বের দাবীকৃত চাঁদা দিতে বলে। আল আমিন সাগর চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় ক্ষুব্ধ হয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে প্রথমে রাকিব এবং সাথেসাথেই হাসিব হামলা চালায়। অন্যান্যরা এলাপাথারি সাগরকে মারধর করতে থাকে। এতে ফটো সাংবাদিক সাগরের মাথায় ও বুকে মারাত্মক আঘাত লাগে এবং আহত হন।

তখন সংঘবদ্ধ চাঁদাবাজ চক্রটি সাগরের কাছে থাকা ক্যানন ডি-৭০০ মডেলের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সাগর যেন তাৎক্ষণিক কোথাও মোবাইল করতে না পারে সেজন্য তার ব্যবহৃত মোবাইলটি ভেঙ্গে ফেলে রাকিব-হাসিব বাহিনী।

মারধরের শিকার আল আমিন সাগরকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে তার শারীরীক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

গুরুত্বর অসুস্থ ফটো সাংবাদিক সাগর এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

তার পিতা সোহরাফ হোসেন জানিয়েছেন, আমার ছেলে কোন দোষ করেনি। সাংবাদিকতা করাই তার জীবনের কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি অসুস্থ আল আমিন সাগরের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, হাসিবুল ইসলাম ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক সময়ের আলো পত্রিকার ব্যুরো প্রধান হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিয়ে থাকেন এবং সাবেক ছাত্রদল নেতা খন্দকার রাকিব বরিশাল ক্রাইম নিউজ নামে একটি অনলাইন পোর্টালের সম্পাদক। এরমধ্যে খন্দকার রাকিব বিসিসির ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এনামুল হক বাহারের দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার চার্জশীটভূক্ত আসামী ও ছাত্রলীগের জেলা কমিটির সহ-সভাপতি জুবায়ের আব্দুল্লাহ জিন্নাহর দায়ের করা আরেকটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার আসামী। ##

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

অন্য খবর