২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করেছে ভোলা সরকারি কলেজ

ভোলা সংবাদদাতা ।। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এ আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিন বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল । কোনো ধরনের প্রতিষেধক না থাকায় সতর্কতা, সচেতনতা ও পরিষ্কার থাকাই আপাতত এ ভাইরাস প্রতিরোধের একমাত্র কৌশল।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে হাতের মাধ্যমে এ ভাইরাস সংক্রমণ হওয়ার কথা জানিয়ে নিয়মিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করার জন্য বলা হচ্ছে। কিন্তু বাজারে এসব চাহিদার তুলনায় একেবারেই অপ্রতুল। যে কারণে ভোগান্তিতে পড়েছে অনেকে। বিশেষ করে নিম্নবিত্ত ও শ্রমজীবী মানুষ। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে নিম্নবিত্ত ও শ্রমজীবী মানুষকে রক্ষার জন্য হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি ও বিনামূল্যে বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ভোলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ভোলা সরকারি কলেজ।

বৃহস্পতিবার(২৬ মার্চ) কলেজের রসায়ন বিভাগের গবেষণারগারে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ভোলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ গোলাম জাকারিয়া।

প্রতিষ্ঠানের রসায়ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এসএম বশির উল্যাহ তত্ত্বাবধায়নে তৈরি করা হয় এই স্যানিটাইজার। এ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন, রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব মো: ফিরোজ সরদার, অতিথি শিক্ষক মহাবুবা নাসরিন,প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মাহাবুবুর রহমান এবং মৃত্তিকাবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ঐশি দত্ত, একাদশ শ্রেণির বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থী নিশাত তাসনিম, তাইয়্যেবাতুন নাজিয়া, সায়মা আক্তার, সুমাইয়া আক্তার,মালিহা জাহান, মো: জায়েদ আনজাম , ল্যাব এসিস্ট্যান্ট এমএলএসএস তরিকুল ইসলাম, শফিকুল ইসলাম, মাহাবুবুর রহমান বাচ্চু, সালেম, জুয়েল, সাইফুল ও নয়নসহ আরো অনেকে।

এতে ভোলার কয়েকটি প্রতিষ্ঠান সহযোগিতা করেছেন। প্রথম দফায় প্রতিষ্ঠানটি প্রায় ৫০০পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে। যার প্রতিটির পরিমাণ হবে ৫০মিলি। হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরী করে জেলার বিভিন্ন স্থানে বিনামূল্যে বিতরণ করে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভোলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ গোলাম জাকারিয়া বলেন, ক্রমেই করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বেড়েই চলেছে। এজন্য বাজারে স্যানিটাইজারের সংকট দেখা দিয়েছে। নিম্নবিত্ত ও শ্রমজীবী মানুষের পক্ষে স্যানিটাইজার ক্রয় করে ব্যবহার করা অসম্ভব। এসব মানুষকে ভাইরাসের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে এ উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা কয়েক ধাপে এই কার্যক্রম চালিয়ে যাব। হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরির জন্য আরও কাঁচামাল সংগ্রহের চেষ্টা করছি।কাচামাল পেলেই বেশি বেশি সংখ্যক হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করে বিনামূল্যে বিতরণ করবো।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জনাব মোহাম্মদ উল্যাহ,হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জনাব জামাল হোসেন , দর্শন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক জনাব মোঃ ইকবাল হোসেন,ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জনাব মো. মাহাবুব আলম, বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ মিজানুর রহমান,ব্যস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক জনাব মো. এরশাদসহ কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn

অন্য খবর